ঢাকা ০৩:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়, মার্কিন পর্যবেক্ষক দলকে বিএনপি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪০:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ অক্টোবর ২০২৩ ১৫৬ বার পড়া হয়েছে
NEWS396 অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। দেশে নির্বাচন পরিস্থিতির কোনও উন্নয়ন হয়নি, বরং আরও অবনতি হয়েছে’ বলে মার্কিন প্রাক-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলকে জানিয়েছে বিএনপি। সোমবার (৯ অক্টোবর) সকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে মার্কিন প্রাক-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলের বৈঠকে এ কথা বলা হয়।

দেড় ঘণ্টার বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও দলের বিদেশ বিষয়ক কমিটির প্রধান আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী উল্লেখ করেন, ‘দেশের মানুষ যেভাবে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চায়, তেমনি সারা বিশ্বও একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। দেশে নির্বাচনের কোনও পরিবেশ নেই, যেটা ইতোমধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে। তারা বলেছে নির্বাচনে পর্যবেক্ষক দল পাঠাবে না। এখন মার্কিন এই প্রতিনিধিদল একই বিষয় নিয়ে কাজ করতে এসেছে।’

আমির খসরু বলেন, ‘আমরা স্বাভাবিকভাবে বিএনপির পক্ষ থেকে বলেছি—শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এটার (নির্বাচন পরিস্থিতি) তো কোনও উন্নয়ন হয়নি, বরং আরও অবনতি হয়েছে। গত কয়েকটি নির্বাচন তারা ভোটাধিকার হরণ করেছে। ভোটচুরির প্রকল্প এখন আরও শক্তিশালী হয়েছে, দমন-নিপীড়ন আরও বেড়েছে।’তিনি বলেন, ‘ভোটচুরিকে তারা (ক্ষমতাসীন দল) প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে। বিচার বিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, লুটেরা ও ব্যবসায়ীরা মিলে একটি ভোটচুরির প্রজেক্ট করেছে। আবারও তারা ভোটচুরি প্রকল্পে কাজ করে যাচ্ছে। এগুলো থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় এক দফা দাবি। এই দাবি প্রতিষ্ঠা করে দেশের জনগণ তার জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবে।’

বৈঠকে বিএনপি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সঙ্গে ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইসমাঈল জবিউল্লাহ, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ।দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্ব পরিস্থিতি যাচাই করতে গতকাল শনিবার ঢাকায় এসেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক নির্বাচনি পর্যবেক্ষক দলের ৭ সদস্য। যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) ও ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক ইনস্টিটিউট (এনডিআই) যৌথভাবে স্বাধীন ও নিরপেক্ষ প্রাক-নির্বাচন সমীক্ষা মিশন পরিচালনা করবেন। প্রতিনিধি দল এবং তাদের সহায়তাকারীরা ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউটের (আইআরআই) প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বনি গ্লিক ও জামিল জ্যাফার জো কাও। ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) দলে রয়েছেন রিক ইনডারফার্থ, মারিয়া চিন আব্দুল্লাহ ও মনপ্রিত সিং আনন্দ।

বৈঠকে মার্কিন প্রাক নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল কিছু বলেছে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আমির খসরুর মন্তব্য, ‘তারা তো এসেছেন পর্যবেক্ষণের জন্য। যেমন এসেছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তারা দেশের বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবেন—পর্যবেক্ষক পাঠাবেন কিনা।’

মার্কিন নির্বাচনি প্রতিনিধিদল কোনও কিছু ব্যাপারে বিশেষভাবে জানতে চেয়েছে কিনা এমন প্রশ্নে আমির খসরু বলেন, ‘সব ব্যাপারেই জানতে চেয়েছেন তারা।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়, মার্কিন পর্যবেক্ষক দলকে বিএনপি

আপডেট সময় : ০৯:৪০:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ অক্টোবর ২০২৩

ক্ষমতাসীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। দেশে নির্বাচন পরিস্থিতির কোনও উন্নয়ন হয়নি, বরং আরও অবনতি হয়েছে’ বলে মার্কিন প্রাক-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলকে জানিয়েছে বিএনপি। সোমবার (৯ অক্টোবর) সকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে মার্কিন প্রাক-নির্বাচন পর্যবেক্ষক দলের বৈঠকে এ কথা বলা হয়।

দেড় ঘণ্টার বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও দলের বিদেশ বিষয়ক কমিটির প্রধান আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী উল্লেখ করেন, ‘দেশের মানুষ যেভাবে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চায়, তেমনি সারা বিশ্বও একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। দেশে নির্বাচনের কোনও পরিবেশ নেই, যেটা ইতোমধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে। তারা বলেছে নির্বাচনে পর্যবেক্ষক দল পাঠাবে না। এখন মার্কিন এই প্রতিনিধিদল একই বিষয় নিয়ে কাজ করতে এসেছে।’

আমির খসরু বলেন, ‘আমরা স্বাভাবিকভাবে বিএনপির পক্ষ থেকে বলেছি—শেখ হাসিনার অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এটার (নির্বাচন পরিস্থিতি) তো কোনও উন্নয়ন হয়নি, বরং আরও অবনতি হয়েছে। গত কয়েকটি নির্বাচন তারা ভোটাধিকার হরণ করেছে। ভোটচুরির প্রকল্প এখন আরও শক্তিশালী হয়েছে, দমন-নিপীড়ন আরও বেড়েছে।’তিনি বলেন, ‘ভোটচুরিকে তারা (ক্ষমতাসীন দল) প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে। বিচার বিভাগ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, লুটেরা ও ব্যবসায়ীরা মিলে একটি ভোটচুরির প্রজেক্ট করেছে। আবারও তারা ভোটচুরি প্রকল্পে কাজ করে যাচ্ছে। এগুলো থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় এক দফা দাবি। এই দাবি প্রতিষ্ঠা করে দেশের জনগণ তার জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবে।’

বৈঠকে বিএনপি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সঙ্গে ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইসমাঈল জবিউল্লাহ, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান আসাদ।দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্ব পরিস্থিতি যাচাই করতে গতকাল শনিবার ঢাকায় এসেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক নির্বাচনি পর্যবেক্ষক দলের ৭ সদস্য। যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) ও ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক ইনস্টিটিউট (এনডিআই) যৌথভাবে স্বাধীন ও নিরপেক্ষ প্রাক-নির্বাচন সমীক্ষা মিশন পরিচালনা করবেন। প্রতিনিধি দল এবং তাদের সহায়তাকারীরা ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউটের (আইআরআই) প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বনি গ্লিক ও জামিল জ্যাফার জো কাও। ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) দলে রয়েছেন রিক ইনডারফার্থ, মারিয়া চিন আব্দুল্লাহ ও মনপ্রিত সিং আনন্দ।

বৈঠকে মার্কিন প্রাক নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল কিছু বলেছে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে আমির খসরুর মন্তব্য, ‘তারা তো এসেছেন পর্যবেক্ষণের জন্য। যেমন এসেছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তারা দেশের বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবেন—পর্যবেক্ষক পাঠাবেন কিনা।’

মার্কিন নির্বাচনি প্রতিনিধিদল কোনও কিছু ব্যাপারে বিশেষভাবে জানতে চেয়েছে কিনা এমন প্রশ্নে আমির খসরু বলেন, ‘সব ব্যাপারেই জানতে চেয়েছেন তারা।’