ঢাকা ০৪:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড ওয়ানডে সিরিজ

হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচে যে একাদশ খেলবে বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৮:৩১:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৫৬ বার পড়া হয়েছে
NEWS396 অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইতোমধ্যে প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ওয়ানডে সিরিজ খুইয়ে বসেছে বাংলাদেশ। হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যরা আজ (শনিবার) তৃতীয় ওয়ানডেতে কিউইদের মোকাবিলা করবে। নেপিয়ারে ম্যাচটি শুরু হবে ভোর ৪টায়। মান বাঁচানোর এই ম্যাচের আগে দোয়া চেয়েছেন টাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। যদিও কিউইদের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে সাদা বলের ক্রিকেটের জয়খরা ঘোচাতে অবশ্যই মাঠে টাইগারদের পারফর্ম করতে হবে।

 

নিউজিল্যান্ডের সামনে হোয়াইট এড়ানোর চ্যালেঞ্জে টাইগাররা (ফাইল ছবি)

 

হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচটিতে দ্বিতীয় ওয়ানডের একাদশে পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম। তবে কোনো বদল আসলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সেক্ষেত্রে কপাল পুড়তে পারে তাওহীদ হৃদয়ের। প্রথম দুই ম্যাচেই বলার মতো কিছু করতে পারেননি ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। যদিও দ্বিতীয় ম্যাচে তিনি দুর্ভাগ্যজনক রানআউটে কাঁটা পড়েছিলেন। হৃদয় একাদশে জায়গা হারালে ম্যাচে দেখা যেতে পারে আফিফ হোসেনকে।

জিততে হলে নেপিয়ারের ম্যাচেও বড় রানের বিকল্প নেই সফরকারীদের সামনে। সেজন্য শুরুটা কেমন হতে হবে সেই পরামর্শও দিয়ে রেখেছেন নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিড। একইসঙ্গে কিউইরাও যে ম্যাচ জয়ের জন্য নামবে— সেটিও তিনি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।

বাংলাদেশকে ভালো করার উপায় বাতলে দিয়ে স্টিড বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে প্রথম ১০ ওভার যেকোনো দলের জন্যই কঠিন হয়ে থাকে। বাংলাদেশ একমাত্র দল নয় যারা এখানে এসে প্রথম ১০ ওভারে সংগ্রাম করেছে। অনেক ওপেনাররাই এভাবে সংগ্রাম করেছে। দুইটি নতুন বলের কারণে মুভমেন্ট বেশি হয় কিছুটা। এখানে আপনাকে শুরুর সময়টা উতরে যেতে হলে আপনাকে টেম্পারমেন্ট ধরে রাখতে হবে।’

সর্বশেষ ম্যাচে বাংলাদেশের ইনিংসের দিকে তাকালে, স্টিডের এমন মন্তব্যের কারণ বুঝতে কঠিন হওয়ার কথা নয়। দলীয় একশ রানের আগেই টাইগাররা সেদিন ৪ উইকেট হারিয়েছিল। যদিও পরবর্তীতে সৌম্য সরকারের ১৬৯ ও মুশফিকুর রহিমের ৪৫ রানের সুবাদে বাংলাদেশ ২৯১ রানের পুঁজি পায়। কিন্তু বড় রানের পিচে যে এমন সংগ্রহ যথেষ্ট ছিল না, সেটি কিউইরা পরের ইনিংসে বুঝিয়ে দিয়েছে। তারা গন্তব্যে পৌঁঁছে যায় ৭ উইকেট হাতে রেখেই।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ১৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ, তার সবকটিতেই তারা হেরেছে। ৯টি টি-টোয়েন্টিতেও ফল একই। মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানরা প্রথম জয় পাননি কিউইদের মাটিতে। সেখানে এবার প্রথম জয়ের খোঁজ করছে নাজমুলের বাংলাদেশও।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ : এনামুল হক বিজয়, সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, রিশাদ হোসেন, হাসান মাহমুদ, শরিফুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড ওয়ানডে সিরিজ

হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচে যে একাদশ খেলবে বাংলাদেশের

আপডেট সময় : ০৮:৩১:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর ২০২৩

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইতোমধ্যে প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ওয়ানডে সিরিজ খুইয়ে বসেছে বাংলাদেশ। হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শিষ্যরা আজ (শনিবার) তৃতীয় ওয়ানডেতে কিউইদের মোকাবিলা করবে। নেপিয়ারে ম্যাচটি শুরু হবে ভোর ৪টায়। মান বাঁচানোর এই ম্যাচের আগে দোয়া চেয়েছেন টাইগার অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। যদিও কিউইদের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে সাদা বলের ক্রিকেটের জয়খরা ঘোচাতে অবশ্যই মাঠে টাইগারদের পারফর্ম করতে হবে।

 

নিউজিল্যান্ডের সামনে হোয়াইট এড়ানোর চ্যালেঞ্জে টাইগাররা (ফাইল ছবি)

 

হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচটিতে দ্বিতীয় ওয়ানডের একাদশে পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম। তবে কোনো বদল আসলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সেক্ষেত্রে কপাল পুড়তে পারে তাওহীদ হৃদয়ের। প্রথম দুই ম্যাচেই বলার মতো কিছু করতে পারেননি ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। যদিও দ্বিতীয় ম্যাচে তিনি দুর্ভাগ্যজনক রানআউটে কাঁটা পড়েছিলেন। হৃদয় একাদশে জায়গা হারালে ম্যাচে দেখা যেতে পারে আফিফ হোসেনকে।

জিততে হলে নেপিয়ারের ম্যাচেও বড় রানের বিকল্প নেই সফরকারীদের সামনে। সেজন্য শুরুটা কেমন হতে হবে সেই পরামর্শও দিয়ে রেখেছেন নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিড। একইসঙ্গে কিউইরাও যে ম্যাচ জয়ের জন্য নামবে— সেটিও তিনি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।

বাংলাদেশকে ভালো করার উপায় বাতলে দিয়ে স্টিড বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে প্রথম ১০ ওভার যেকোনো দলের জন্যই কঠিন হয়ে থাকে। বাংলাদেশ একমাত্র দল নয় যারা এখানে এসে প্রথম ১০ ওভারে সংগ্রাম করেছে। অনেক ওপেনাররাই এভাবে সংগ্রাম করেছে। দুইটি নতুন বলের কারণে মুভমেন্ট বেশি হয় কিছুটা। এখানে আপনাকে শুরুর সময়টা উতরে যেতে হলে আপনাকে টেম্পারমেন্ট ধরে রাখতে হবে।’

সর্বশেষ ম্যাচে বাংলাদেশের ইনিংসের দিকে তাকালে, স্টিডের এমন মন্তব্যের কারণ বুঝতে কঠিন হওয়ার কথা নয়। দলীয় একশ রানের আগেই টাইগাররা সেদিন ৪ উইকেট হারিয়েছিল। যদিও পরবর্তীতে সৌম্য সরকারের ১৬৯ ও মুশফিকুর রহিমের ৪৫ রানের সুবাদে বাংলাদেশ ২৯১ রানের পুঁজি পায়। কিন্তু বড় রানের পিচে যে এমন সংগ্রহ যথেষ্ট ছিল না, সেটি কিউইরা পরের ইনিংসে বুঝিয়ে দিয়েছে। তারা গন্তব্যে পৌঁঁছে যায় ৭ উইকেট হাতে রেখেই।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তাদের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত ১৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ, তার সবকটিতেই তারা হেরেছে। ৯টি টি-টোয়েন্টিতেও ফল একই। মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানরা প্রথম জয় পাননি কিউইদের মাটিতে। সেখানে এবার প্রথম জয়ের খোঁজ করছে নাজমুলের বাংলাদেশও।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ : এনামুল হক বিজয়, সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, রিশাদ হোসেন, হাসান মাহমুদ, শরিফুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান।